/ বিজ্ঞান

কেন বৃষ্টি হচ্ছে না ?

নাজমুল মিয়া - রিপোর্টার

আপডেট: 02-05-2021 09:19:37

আমরা জানি, সমুদ্র , নদী- নালা ,খাল-বিল ইত্যাদি আছে,সেখান থেকে পানি সুর্যের তাপের দ্বারা জলীয় বাষ্পে পরিণত হয় এবংএই সব জলীয় বাষ্প মিলে মেঘ তৈরি হয় আর পরবর্তীতে বৃষ্টি হয়। কিন্তু বাংলাদেশের নদী-নালার যে অবস্থা তাতে বাষ্প হয়েমেঘ সৃষ্টি হবে সে পরিমান পানি থাকে না। এবং আমরা নদী ভরাট করে খালে এবং খাল ভরাট করে যে হারে নালায় তৈরি করছি! তাতে পানি পাবো কিভাবে? তাই বৃষ্টি হচ্ছে নাহ!






আবার আমরা জানি, গাছ আমাদের ন্যায় জীব । তাহলে আমরা যেমন খাদ্যগ্রহন করি গাছও তেমনিভাবে খাদ্যগ্রহণ করবে এটাস্বাভাবিক। গাছ সালোক্সংশ্লেষণ প্রক্রিয়ায় খাদ্য তৈরি করে । এটাও বোধ হয় আমাদের জানা। এমনকি গাছ খাদ্য তৈরিতে পানিব্যাবহার করে সেটাতো আমাদের আরো আগে জানা ঠিক তো ! কিন্তু আমি বলতে চাই গাছ যে পানি মুল থেকে নেয় তা সে সম্পুর্ণকাজে লাগায় না । তাহলে বাকিগুলো করে কী ? বাকি পানি গাছ জলীয় বাষ্প আকারে পাতার সাহায্যে বাইরে বের করে দেয় । এপ্রক্রিয়াকে প্রশ্বেদন বলে ।




ধরে নিলাম আমরা পুরো ঢাকা শহরে গাছ লাগিয়েছি। একটি জায়গাও বাদ নেই । এমতাবস্থায় যদি প্রতিটি গাছ প্রশ্বেদনপ্রক্রিয়ায় জলীয় বাষ্প আকারে পানি ত্যাগ করে, তাহলে তো সেগুলো একটা জায়গায় যাবে তাই না …… আকাশে যাবে । কারনএই পানি তো জলীয় বাষ্প আকারে আছে আর আমরা সবাই জানি জলীয় বাষ্প থেকেই আস্তে আস্তে মেঘের উৎপত্তি হয়এখানেও তাই হবে । আর মেঘ থেকে বৃষ্টি হবে। তাহলে নিজ চিন্তন দক্ষতা থেকে আমরা সবাই বুঝতে পারছি যে, বেশি গাছ হলেবেশি জলীয় বাষ্প আর বেশি জলীয় বাষ্প থেকে বেশি পরিমাণ বৃষ্টি কারন মেঘ সৃষ্টি হবে।কিন্তু আমরা প্রতিনিয়োত বন উজার করছি! তাহলে কি বৃষ্টি হওয়ার কথা! 


Comments (0)

Comments